জীবনে একটি জায়গাতেই ভ্রমণ করেছেন, তাও মাত্র ২০০০ বার

প্রত্যেকের জীবনে একটা সময় থাকে যখন চিড়িয়াখানায় যেতে তার খুব ভালো লাগে। ছোটবেলাতেই চিড়িয়াখানা ভ্রমণটাই হয় সবচেয়ে বেশি। বড় হওয়ার পর সেভাবে চিড়িয়াখানায় যাওয়া কারওরই হয়ে ওঠে না। কিন্তু সব ঘটনারই ব্যতিক্রমী উদাহরণ থাকে।

ব্যতিক্রমী মানুষটি হলেন মু্যরিয়েল থ্যাচার। যিনি মাত্র ২০০০ বার তাঁর পছন্দের একটি চিড়িয়াখানাতেই শুধু ভ্রমণ করেছেন। চিড়িয়াখানাটি পশ্চিম মিডল্যান্ডের  জু

১৯৩৭ সালে মু্যরিয়েলের বয়স যখন ১০ তখনই তিনি প্রথমবার ওই চিড়িয়াখানায় ভ্রমণ করেন। এরপর থেকে প্রতি দুই সপ্তাহ পর পর তিনি ওই চিড়িয়াখানায় ভ্রমণ করেছেন। মু্যরিয়েলের কাছে এই চিড়িয়াখানা তাঁর দ্বিতীয় বাসস্থান। মু্যরিয়েলের চিড়িয়াখানার প্রতি ভালোবাসা দেখে কর্তৃপক্ষ ৮৭ বছর বয়সি মু্যরিয়েলকে আজীবন সদস্য হিসাবে স্বীকৃতি দিয়েছেন। এর ফলে মু্যরিয়েল চিড়িয়াখানায় অবাধ প্রবেশের অনুমতি পায়। টানা ৭৭ বছর ধরে ওই চিড়িয়াখানায় আসার জন্য তাঁকে এই সম্মানজনক অনুমতি দেওয়া হয়।

মু্যরিয়েল প্রথমবার ওই চিড়িয়াখানায় গিয়েছিলেন তাঁর মায়ের সঙ্গে। এরপর থেকে প্রতি দু পর পর ৩ ঘণ্টার জন্য তিনি ওই চিড়িয়াখানায় আসেন। চিড়িয়াখানা কর্তপক্ষ মুরিয়েলের বসার জন্য সেখানকার বানরের খাঁচার পাশে তাকে একটি বেঞ্চ করে দিয়েছেন।

ব্যক্তিগত জীবনে মুরিয়েল ছিলেন একজন নার্স। তিনি বিয়ে করেননি। তবে এখনও পর‌্যন্ত তিনি ২৩টি প্রাণীকে দত্তক নিয়েছেন। এতবার ভ্রমণ করেও তাঁর মধ্যে মোটেও ক্লান্তি বোধ আসেনি এবং তিনি আমরণ এখানে ভ্রমণ করতে চান।