নির্বাচনী জনসভা ফেরৎ বিজেপি কর্মীদের মেরে রক্তাক্ত করার অভিযোগ উঠলো তৃণমূলের বিরুদ্ধে

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায় (বর্ধমান): ভোটের দিন এগিয়ে আসার সাথে সাথে পূর্ব বর্ধমান জেলায় উত্তরোত্তর বেড়ে চলেছে রাজনৈতিক হিংসা হানাহানির ঘটনা। নির্বাচনী জনসভায় যোগদিয়ে ফিরতে থাকা বিজেপি কর্মীদের ট্র্যাক্টর থেকে নামিয়ে মারধোর করে রক্তাত করার অভিযোগ উঠলো তৃণমূলের বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে জেলার মন্তেশ্বর থানার মোজাহার নগর এলাকায়। এই ঘটনা নিয়ে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আক্রান্তদের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ হামলাকারীদের খোঁজ শুরু করেছে।

মন্তেশ্বরের বিজেপি নেতা সঞ্জীব হাজরা, সুপ্রকাশ মণ্ডল প্রমুখরা বলেন, পূর্বস্থলী উত্তর বিধানসভার বিজেপি প্রার্থী গোবর্ধন দাসের সমর্থনে এদিন বিকালে মন্তেশ্বরের বামুনপাড়া এলাকায় একটি নির্বাচনী জনসভা হয়। প্রার্থী গোবর্ধন দাস ছাড়াও, বিজেপির তপশিলী মোর্চার রাজ্য সভাপতি দুলাল বর, জেলা সভাপতি সুজিৎ মজুমদার সহ অন্যা নেতা নেত্রীরা সভায় উপস্থিত ছিলেন। বিজেপির বুথ সভাপতি বাবু সরকার, দোদন মাজি, বিরাজ মাজি ছাড়াও মন্তেশ্বর এলাকার আরও বেশকয়েকজন কর্মী একসাথে ওই সভায় যোগ দেয়। সভা শেষে রাতে ট্র্যাক্টরে চড়ে তারা সবাই নিজেদের বাড়ির ফিরছিল। অভিযোগ পথে মন্তেশ্বরের মোজাহার নগর এলাকায় তৃণমূল কর্মীরা বিজেপি কর্মীদের ট্র্যাক্টর আটকায়। ট্র্যাক্টর থেকে বিজেপি কর্মীদের নামিয়ে তৃণমমূলের কর্মীরা ব্যাপক মারধোর করে। মেরে বিজেপি কর্মীদের মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয় বলে বিজেপি নেতা সঞ্জীব হাজরা ও সুপ্রকাশ মন্ডল অভিযোগ করেছেন। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌছে যায় মন্তেশ্বর থানার পুলিশ। আক্রান্তদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য মন্তেশ্বর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এই ঘটনা জানাজানি হতেই এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

যদিও পূর্বস্থলী উত্তর বিধানসভার তৃণমূল প্রার্থী তপন চট্টোপাধ্যায় বিজেপির আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। পাল্টা অভিযোগে তপন বাবু বলেন, বিজেপির লোকজন সব জায়গায় নিজেদের মধ্যে মারপিট করে বেড়াচ্ছে। এদিনের ঘটনাও হয়তো তেমনই ঘটেছে। সেই দায় আড়াল করতে বিজেপি নেতারা ঘটনার জন্য তৃণমূলের ঘাড়ে দোষ চাপাচ্ছে।

ক্লিক করে পড়ুন ‘সাতসকাল’ ই-খবরের কাগজ

The post satsakal 12-05-2021 appeared first on satsakal.com.