প্রধানমন্ত্রীর পর অমিত শাহের সঙ্গে একান্তে মুখ্যমন্ত্রী, কারণ নিয়ে প্রশ্ন উঠছে রাজনৈতিক মহলে

২৮ ফেব্রুয়ারি ভুবনেশ্বরে অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে এই বৈঠক ডাকা হয়েছে। প্রসঙ্গত, জাতীয় নিরাপত্তা এবং সীমান্তের পরিস্থিতি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ, ঝাড়খন্ড, বিহার, ওড়িশা এবং সিকিমের মুখ্যমন্ত্রীদের নিয়ে প্রতি বছরই এই বৈঠক হয়। এর আগে এই বৈঠক হয়েছিল নবান্নে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন ততকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। এবার এই বৈঠক হচ্ছে ভুবনেশ্বরে। সেই বৈঠকেই উপস্থিত থাকবেন মমতা। সূত্রের খবর অমিত শাহের সঙ্গে আলাদাভাবে বৈঠকে বসতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী। আর এই নিয়েই রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে জল্পনা।

অমিত শাহ, যিনি সংসদে সিএএ-কে আইনে পরিণত করেছেন, অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, যিনি সারা দেশে এই আইনের বিরূদ্ধে প্রথম আন্দোলনের ডাক দিয়েছিলেন এবার দুজনে মুখোমুখি হতে চলেছেন। রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন উঠছে মুখ্যমন্ত্রী যেখানে এনআরসি, সিএএ-র বিরূদ্ধে বৃহত্তর আন্দোলন করেছেন সেখানে বৈঠকে উপস্থিত থাকা নিছকই সৌজন্য নাকি এর পিছনে অন্য কারণ রয়েছে। শুধু যে বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন তা তো নয়, আলাদা করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকেও বসবেন। এর কারণ কী?

উল্লেখ্য, গত মাসেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রধানমন্ত্রী এ রাজ্যে আসা এবং আন্দোলনের মাঝে তাঁর সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠক ঘিরে গোটা কলকাতা সেদিন উত্তাল হয়েছিল। রাজনৈতিক ওয়াকিবহল মহলের একাংশের প্রশ্ন মুখ্যমন্ত্রী যেখানে সিএবি, এনআরসি বিরূদ্ধে আন্দোলন করছেন, সেখানে আবার একান্তে প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকও করছেন? এটা কি দ্বিচারিতা নয়? তাঁদের প্রশ্ন তবে কি মুখ্যমন্ত্রী নিজের স্বার্থে এবং দলের স্বার্থে একান্তে বৈঠক করছেন? প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের কেসটা যেভাবে এখন ধামা চাপা পড়ে রয়েছে সেটা কি প্রধানমন্ত্রী-মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠকের ফল? প্রশ্ন উঠছে সামনে নির্বাচন। সেই দিকটা মাথায় রেখেই কি এখন সুর নরম করেছেন মুখ্যমন্ত্রী? ভোটের আগে সিবিআইয়ের নিশানায় যাতে শাসক দলকে পড়তে না হয় সেই জন্যই কি বার বার একান্তে বৈঠক করে সমঝোতায় আসতে চাইছেন মুখ্যমন্ত্রী? কারণ সিএএ, এনআরসি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি অমিত শাহকেও আক্রমণ করতে ছাড়েননি মমতা। এরপরেও অমিত শাহের সঙ্গে আলাদা বৈঠক করতে চলেছেন। সেই নিয়ে জলঘোলা হচ্ছে বিস্তর। অন্যদিকে মোদির সঙ্গে মমতার বৈঠকের পর সিপিএম-কংগ্রেস মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করেছিলেন। এবার অমিত-মমতার বৈঠকের পর আবারও বিরোধীদের কটাক্ষের মুখে পড়তে হবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশ।

ক্লিক করে পড়ুন ‘সাতসকাল’ ই-খবরের কাগজ

The post satsakal 12-05-2021 appeared first on satsakal.com.