যশ-বিধ্বস্ত মেদিনীপুরে শুনলেন দুর্গত মানুষের কথা, শুভেন্দুকে তোপ অভিষেকের

সোমনাথ আদক: বৃহস্পতিবার ‘যশ’ বিধ্বস্ত পূর্ব মেদিনীপুরে ঘুরে দেখলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। পূর্ব মেদিনীপুরের মন্দারমণি, তাজপুর লাগোয়া এলাকা, রামনগর, কাঁথির বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন তিনি। তাজপুর সংলগ্ন চাঁদপুর এলাকায় হেঁটে হেঁটে বেহাল বাঁধগুলি ঘুরে দেখেন অভিষেক। তাঁর সঙ্গে ছিলেন মৎসমন্ত্রী অখিল গিরি, পূর্বমেদিনীপুর জেলা যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অরূপ কর।

এদিন অভিষেক বাঁধ নিয়ে ওখানকার স্থানীয় অধিবাসীদের সমস্ত অভিযোগ শোনেন এবং তাঁদের পাশে থাকার আশ্বাসও দেন। একইসঙ্গে বাঁধের বেহাল দশা নিয়ে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন অভিষেক। নাম না করেই শুভেন্দু অধিকারীকে নিশানা করে বললেন, “মানুষের টাকা সরিয়ে কারা এই বাঁধ নির্মাণ করেছেন সবাই জানেন। কাউকে রেয়াত করা হবে না।”

এখানেই শেষ নয়, শুভেন্দুর ‘নাবালক’ কটাক্ষের জবাবও দিয়েছেন অভিষেক। তিনি বললেন, “সাবালকের ব্যর্থতা দেখতে নাবালককে আসতে হয়। সাবালক শুধু বড়-বড় ভাষণ দিচ্ছেন। উনি যখন সাবালক তো সাবালকত্বের পরিচয় দিন। সাবালককে অন ক্যামেরা টাকা নিতে দেখা গিয়েছে। নাবালককে কিন্তু দেখা যায়নি।”

এদিন সকলের অভিযোগ মন দিয়ে শুনে যুব তৃণমূল সভাপতির আশ্বাস, “সরকার সব করে দেবে। নিশ্চিন্তে থাকুন। এখন ঘর বাড়ির মায়া করবেন না। আগে প্রাণে বাঁচুন।” তিনি আরও জানান, “আগামী মাস থেকে ক্ষতিগ্রস্তদের ব্যাংকে সরকারি সাহায্য ঢুকতে শুরু করবে। সকলের টাকা পেতে একটু সময় লাগবে। সরকারকে সেই সময়টা দিন। সকলেই ক্ষতিপূরণ পাবেন।” তিনি আরও বলেন, “যাঁর যা ক্ষতি হয়েছে, তার খতিয়ান দিন। ১৫ দিনের মধ্যে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।” পাশাপাশি শিশুদেরও বিশেষ দেখভালের নির্দেশ দেন তিনি।

ক্লিক করে পড়ুন ‘সাতসকাল’ ই-খবরের কাগজ

The post satsakal 15-06-2021 appeared first on satsakal.com.