যাঁরা ভোটে খেলতে চাইছে তাঁদের বিচার হবে ২ মে-র পর হবে: তৃণমূলকে হুঁশিয়ারি সুনীলের

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায় (বর্ধমান): ভারতবর্ষের কোনও মানুষের দুর্দশা পশ্চিম বাংলার মানুষের মতো নেই। সিপিএম রাজত্বে যদি চার আনা অন্যায় হয়ে থাকে তবে তৃণমূলের রাজত্বে ষোল আনা অন্যায় হয়েছে। সেই হিসাবে এবারের বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের একটাও প্রার্থীর জেতার কথা নয় বলে রবিবার পূর্ব বর্ধমানের রায়নার জনসভা থেকে দাবি করলেন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া সাংসদ সুনীল মণ্ডল। একই সঙ্গে তিনি বলেন, “চারদফা নির্বাচন সম্পূর্ণ হয়ে যাওয়ার পর তৃণমূল বুঝে গিয়েছে ওদের কোন আসন নেই। আসন ফাঁকা হয়ে গিয়েছে। তার জন্যে এখন থেকে ওরা গ্রামে গ্রামে সন্ত্রাস শুরু করেছে। বোম, বারুদ, পিস্তল কিছুই মজুত রাখতে বাকি রাখছে না”। যদিও সুনীল মণ্ডলের এই বক্তব্যকে ’পাগল গদ্দারের’ প্রলাপ বলে কটাক্ষ করেছেন রায়না ১ ব্লক তৃণমূলের সভাপতি বামদেব মণ্ডল।

এদিন পূর্ব বর্ধমানের রায়না বিধানসভার বিজেপি প্রার্থী মানিক রায়ের সমর্থনে রায়না স্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত হয় নির্বাচনী জনসভা। সেই সভার প্রধান বক্তা মিঠুন চক্রবর্তী বক্তব্য রাখার আগে সুনীল মণ্ডল নিজে বক্তব্য রাখতে শুরু করেন। মহাগুরুর উপস্থিতিতে সভামঞ্চ থেকে সুনীল মণ্ডল হঁশিয়ারী দেন, “ভোটে যারা খেলতে চাইছে তাদের ফটো তুলে রাখুন। ওদের দিদি ছিল গোল কিপার। সেই গোল কিপারের একটা পা খতম হয়ে গিয়েছে। ২ মে-র পর ওদের সব হিসেব নিকেশ হবে“। যদিও একই সভা থেকে পরে মহাগুরু মিঠুন চক্রবর্তী তাঁর ভাসনে বলেন, ’বাংলায় বিজেপি ক্ষমতায় এলে কোনও দাঙ্গা হবে না, সন্ত্রাস হবে না, কোনও হিংসা হবে না। এটা গ্যারান্টি।‘

অথচ, রায়নার জনসভা থেকে সুনীল মণ্ডল তৃণমূলকে হুঁশিয়ারী দিয়ে বলেন, ভদ্রভাবে বলে দিতে চাই অনেক খেলা খেলেছ। এবার বেশি বাড়াবাড়ি করলে ২ তারিখে আমরা সব হিসেব নিকেশ করবো। তৈরি থেকো।

ক্লিক করে পড়ুন ‘সাতসকাল’ ই-খবরের কাগজ

The post satsakal 12-05-2021 appeared first on satsakal.com.