বিধানসভার ক্লাব প্রাঙ্গণে আয়োজিত হল রক্তদান শিবির

বিধানসভার ক্লাব প্রাঙ্গণে আয়োজিত হল রক্তদান শিবির, উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের শ্রমমন্ত্রী মলয় ঘটক

সুবল সাহা: এক ফোঁটা রক্ত মানুষের জীবন বাঁচাতে সহায়ক। আর এই অঙ্গীকার নিয়েই প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও বুধবার দি ওয়েস্ট বেঙ্গল লেজিসলেচার স্টাফ রিক্রিয়েশন ক্লাবের পক্ষ থেকে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয় বিধানসভার ক্লাব প্রাঙ্গণে। এবছর এই ক্লাবের ৫৪তম প্রতিষ্ঠা দিবস। এদিনের অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করেন বিধানসভার বিশেষ সচিব ধৃতিরঞ্জন পাহাড়ি। রক্তদান শিবিরে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের শ্রমমন্ত্রী মলয় ঘটক, বিধায়ক শিউলি সাহা, বিধায়ক শ্যামল মণ্ডল, বিধায়ক অসিত মিত্র, ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রাজু রায়, সহ সভাপতি তাপস কুমার চক্রবর্তী।

এদিনের রক্তদান শিবিরে প্রায় ৫০ জনের মতো রক্তদাতা রক্তদান করেন। সকাল ১১টায় এই অনুষ্ঠান শুরু হয়, অনুষ্ঠান চলে বেলা ৩টে পর্যন্ত। এই অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিধানসভার বিশেষ সচিব ধৃতিরঞ্জন পাহাড়ি বলেন, মানুষ সমাজবদ্ধ জীব। পরস্পরের প্রয়োজনে একে অন্যের দিকে হাত বাড়িয়ে দেওয়াটাই আমাদের ধর্ম। রক্তদানের মাধ্যমেও একে অন্যের প্রয়োজনে আসা যায়। আর প্রয়োজনে এই রক্ত জীবনদান করতে কতটা সহায়ক সেটা বোধ হয় বলার অপেক্ষা রাখে না। সব থেকে বড় কথা হল রক্তদান করলে রক্তদাতার শরীরের কোনও ক্ষতি হয় না।

অনেকের মনে ভয় থাকে রক্ত দিলে হয়তো শরীর থেকে অনেক রক্ত বেড়িয়ে যায়, শরীর দূর্বল হয়ে যায়, কিন্তু এটা ভুল ধারণা। যে রক্ত দেওয়ার মতো উপযুক্ত সেরকম কেউ রক্ত দিলে তাঁর শরীরে কোনও ক্ষতি হয় না। উলটে সে যদি নিয়মিত রক্তদান করে তাহলে তাঁর শারীরিক কিছু প্রক্রিয়া স্বাভাবিক থাকে। সেই কারণেই বলা যেতে পারে ভয় না করে রক্তদানে এগিয়ে আসুন। আরও একটা কথা বলতেই হয় সেটা হল বর্তমান পরিস্থিতিতে নানা কারণে যেভাবে মানুষের শরীর থেকে রক্ত ঝড়ছে, এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে রক্তদান খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

আরও পড়ুন: এনআরসি এবং সিএএ-এর বিরোধীতায় মুখ্যমন্ত্রীর আন্দোলন কি কেন্দ্রের উপর চাপ বাড়াতে পারছে?

আমি মনে করি রক্তের মধ্যে কোনও ভেদাভেদ নেই। রক্তদানের মাধ্যমেই সাম্প্রদায়িক ভেদাভেদ দূর করা সম্ভব। তাই আমাদের প্রত্যেকেরই রক্তদানে এগিয়ে আসা উচিত। কবি কামিনী রায় যেমন বলেছিলেন, ‘সকলের তরে সকলে আমরা, প্রত্যেকে আমরা পরের তরে।’ এই অঙ্গীকার নিয়েই আমাদের জীবনে এগিয়ে চলা একান্ত কাম্য।

অন্যদিকে ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রাজু রায় বলেন, রক্তদান এক মহৎ কাজ। আর এই মহৎ কাজে আমাদের সকলেরই এগিয়ে আসা উচিত। পাশাপাশি বলেন, প্রতি বছরই এই রক্তদান শিবিরের আয়োজন করা হয় এবং প্রতি বছরই সকলে স্বইচ্ছায়, স্বতঃস্ফূর্তভাবে রক্তদান করেন।

তবে গুরুত্বপূর্ণ কাজে কলকাতার বাইরে থাকার জন্য বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় এবং ডেপুটি স্পিকার সুকুমার হাঁসদা এদিনের রক্তদান শিবিরে উপস্থিত থাকতে পারেননি। তবে এই অনুষ্ঠান যাতে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয় তার জন্য শুভেচ্ছাবার্তা জানিয়েছেন বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। বিধানসভার ক্লাব প্রাঙ্গণে আয়োজিত হল রক্তদান শিবির

ছবি: সুবল সাহা

ক্লিক করে পড়ুন ‘সাতসকাল’ ই-খবরের কাগজ

The post satsakal 08-05-2021 appeared first on satsakal.com.