গভীর রাতে হাতির হানা

শুভ চক্রবর্তী, পশ্চিম মেদিনীপুর: রাতভর হাতির তান্ডবে নাজেহাল এলাকাবাসী,নষ্ট হল বিস্তীর্ণ এলাকার চাষের ধান। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শনিবার গভীর রাতে প্রায় ৩০-৪০ টি হাতির পাল কেশিয়াড়ী ব্লকের বেনাকুড়িয়া, মহিষামুড়া এলাকায় প্রবেশ করে ভোর পর্যন্ত তান্ডব চালায়। পাকা ধান কাটার সময় ফি বছরই এমন তাণ্ডব দেখা যায় পশ্চিম মেদিনীপুরের একাধিক এলাকায়। এইধরনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রায়ই ফুঁসে ওঠেন জেলার চাষিরা। বনদপ্তর এবং প্রশাসনের তরফে কখনো কখনো হুলিয়া পাটিকে দিয়ে হাতি তাড়ালেও কিছু দিনের মধ্যেই আবারো একই ভাবে গজরাজের অত্যাচারের শিকার হতে হয় চাষীদের।
জেলায় পশুপ্রেমীদের মতে হাতিদের বাসস্থান ক্রমশ সংকুচিত হয়ে আসার ফলে খাদ্যের অভাব স্বাভাবিক ভাবেই দেখা দিচ্ছে আর সেই কারণেই তারা বারবার হানা দিচ্ছে চাষের জমি এবং বনলাগোয়া গ্রামগুলিতে খাদ্যের সন্ধানে।

বেনাকুড়িয়া এলাকাএক চাষি প্রভাত সিং বলেন গতরাতেই ধান জমিতে ব্যাপক ক্ষতি করেছে হাতির বড়ো একটিপাল। বোরো চাষের বেশ কয়েক একর জমি এলাকায় ৩০-৪০ টি হাতির দল তান্ডব চালায়।প্রতি বছরই চাষের সময় আমাদের আতঙ্কে থাকতে হয়।

প্রসঙ্গত, শনিবার বিকেল নাগাদ পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার মহিষামুড়া থেকে হাতির একটি বড়োপাল রওনাদিয়ে বেনাকুড়িয়া, পাথরহুড়ি প্রভৃতি এলাকার চাষের জমি গুলিতে গভীর রাতে ঢুকে তান্ডব চালায়। স্থানীয় বাসিন্দা সবিতা সিং বলেন ধান ওঠার মুখে হাতির তান্ডবে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ আমরা।ক্ষতিপূরণের ব্যাপারে বনদফতরে জানাব তবে পাবকিনা জানানেই।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে বর্তমানে হাতির পাল পাথরহুড়ির জঙ্গলে রয়েছে। রাতে ক্ষতির আশঙ্কা করেছেন এলাকাবাসী। তবে বনদফতরের তরফে হাতি তাড়ানোর জন্য এখনো পর্যন্ত ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় আতঙ্কে রয়েছে গোটা এলাকা।

কার্যত বোরো চাষের মরসুমে পাকা ধানে মই দিয়ে গেল হাতি এমনটাই মত চাষীদের।

ক্লিক করে পড়ুন ‘সাতসকাল’ ই-খবরের কাগজ

The post satsakal 08-05-2021 appeared first on satsakal.com.