সবংয়ে আদিবাসী নাবালিকাকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ৩ অভিযুক্ত

তারক হরি : তেরো বছরের এক আদিবাসী নাবালিকাকে গণধর্ষণের পর পরিত্যক্ত মাঠে ফেলে পালালো দুষ্কৃতীরা। ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সবং থানা এলাকায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সবং থানার অন্তর্গত দেভোগ গ্রাম পঞ্চায়েতের অধীন উচিতপুর কলোনী পাড়া এলাকার মাতৃহীন এক নাবালিকাকে সোমবার সন্ধ্যায় ফুঁসলিয়ে নিয়ে গিয়ে রাতভর শারীরিক অত্যাচার চালায় গ্রামেরই পূর্বপরিচিত ৩ জন যুবক। এদিকে রাতে ওই নাবালিকা বাড়ি না ফেরায়, তার খোঁজ শুরু করে পরিবারের সদস্যরা। পরের দিন ভোর নাগাদ, ওই এলাকার একটি হাট লাগোয়া কয়েকটি দোকানের পেছনে পরিত্যক্ত একটি মাঠের ঝোঁপ থেকে ওই নাবালিকাকে বিবস্ত্র ও অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয়রা।

এরপর শুক্রবার ওই নাবালিকার পিতার অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ধৃতদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা দায়ের করে।

ধৃতরা হলেন, বিশ্বনাথ সিং বিশ্বনাথ পাত্র ও গৌতম কুইলা।

সোমবার এই ঘটনার পরে অভিযুক্তদের চিহ্নিতকরণ করে বুধবার গ্রামে একটি সালিশি সভায় গ্রামের মোড়লদের তরফে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এরপর ওই নাবালিকা কন্যার পিতা পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এদিকে এ ঘটনার পরেই আদিবাসী সংগঠন ভারত জাকাত মাঝি পারগানা মহলের পক্ষ থেকে অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি জানিয়ে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন ওই সংগঠনের সদস্যরা।

ওই তিন অভিযুক্তের বিরুদ্ধে পুলিশ পাকসো আইন সহ যৌন নির্যাতনের একাধিক ধারায় মামলা দায়ের করেছে। ইতিমধ্যে তাদের জেলহেফাজতে নেওয়া হয়েছে। ধৃতদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করে কঠিনতম শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে বলে প্রশাসন সূত্রে জানানো হয়েছে। ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।