মালদাতে যশ পরবর্তী দুর্যোগ ফের কাড়লো প্রাণ, বাজ পড়ে মৃত ২, আহত ৩

তনুজ জৈন (মালদা): বজ্রাঘাতে মৃত্যু হলো দশম শ্রেণীর ছাত্র এবং এক মধ্য-বয়স্কর। যশ পরবর্তী সময়ে তিন দিন ধরে ভারী বৃষ্টি মালদা জেলা জুড়ে। রবিবার সকাল থেকেও বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি হচ্ছিল। সেই সময়ে বাজ পড়ে মৃত্যু হয় দুই জনের। গুরুতর আহত হয়েছে আরো তিন জন। শোকের ছায়া এলাকায়। যশ পরবর্তী দুর্যোগ সারা রাজ্যে থেমে গেলেও মালদাতে যেন কিছুতেই থামতে চাইছে না। প্রায় টানা তিনদিন ধরে বৃষ্টি হয়ে চলেছে জেলাতে। শনিবার আবহাওয়া কিছুটা পরিষ্কার হলেও রবিবার সকাল থেকেই জেলার বিভিন্ন প্রান্তে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি শুরু হয়। বিভিন্ন জায়গায় বন্যা পরিস্থিতি। তারই মাঝে ঘটে গেল এক মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকায় বাজ পড়ে মৃত্যু হল দুজনের। গুরুতর আহত তিন জন। মৃত দুজনের মধ্যে এক জনের নাম কৌশিক দাস(১৬), বাড়ি পিপলা। অন্য আরেক জনের নাম নুরুল খান(৪৫), বাড়ি সুলতাননগর গ্রামে। আহত ব্যক্তির নাম দীপক দাস(৪২)। তারও বাড়ি পিপলা গ্রামে। এই মুহূর্তে সে গুরুতর আহত অবস্থায় চাঁচল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এই মর্মান্তিক ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে এলাকাজুড়ে। খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে আসেন মালদা জেলা তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক জম্মু রহমান। পরিবারগুলোর পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন।

অন্যদিকে অল্পের জন্য বজ্র বিদুৎতের হাত থেকে রক্ষা পেলেন বাবা ও ছেলে। আতঙ্কে পরিবার। জানা যায় রবিবার বিকেল দুটো নাগাদ মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর এলাকায় বজ্রবিদ্যুৎ সহ ঘুর্নিঝড় হয়। ঝড়ের সময় হরিশ্চন্দ্রপুর-১ নং ব্লকের মহেন্দ্রপুর জিপির দক্ষিণ রামপুর গ্রামের বাসিন্দা হামেদুল রহমান (৬০) তার বড়ো ছেলে বরজাহান আলি নিজের বাড়ির বারান্দায় বসেছিলেন। এই সময় বারান্দার পাশে বজ্রপাত হলে বাবা হামেদুল রহমানের গায়ের চামড়া পুড়ে ফোস্কা পড়ে যায় এবং ছেলে বরজাহান আলি গেঞ্জিতে আগুন ধরে যায় বলে খবর। অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পান বাবা ও ছেলে।

ক্লিক করে পড়ুন ‘সাতসকাল’ ই-খবরের কাগজ

The post satsakal 15-06-2021 appeared first on satsakal.com.