পঞ্চায়েতের গাফিলতিতে জলমগ্ন এলাকায় জীবনযাপন করছেন নদিয়াবাসী

অতনু গোস্বামী (নদিয়া): দুমাস ধরে একাধিক বাড়ির মধ্যে হাঁটু সমান জল, এলাকার মেম্বার বিজেপি হওয়ার কারণে কোনো উদ্যোগ না নেওয়ার অভিযোগ উঠল তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি নদীয়ার শান্তিপুর থানার বাবলা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। দীর্ঘ বৃষ্টিপাতের কারণে বাবলা গ্রাম পঞ্চায়েতের দক্ষিণ কায়স্থ পাড়া এলাকায় প্রায় দুই মাস ধরে জল জমে রয়েছে। ফলে কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রেও নিত্যপ্রয়োজনীয় কাজে যেতে হলে ওই জমা পচাজল পেরিয়ে গন্তব্যস্থলে যেতে হচ্ছে এলাকার মানুষজনকে। পাশাপাশি দুই মাস ধরে ঘরের মধ্যে জল জমে থাকার কারণে রান্না করতে কার্যত হিমশিম খাচ্ছেন ওই এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা।

এছাড়াও দীর্ঘদিন জল জমে থাকার কারণে পচা দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে সম্পূর্ণ এলাকায় যা স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকারক। শুধু তাই নয় একদিকে যেমন মশার উৎপাত বেড়েছে এলাকাজুড়ে অন্যদিকে বিষধর সাপ ঢুকে পড়ছে ঘরের মধ্যে। যার কারণে একদিকে যেমন প্রাণহানি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে অন্যদিকে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনায় পরিবারের বয়স্ক সদস্য ও শিশুদের নিয়ে কার্যত উৎকণ্ঠার মধ্যে দিনযাপন করছেন এলাকার বাসিন্দারা বলে অভিযোগ স্থানীয় এলাকাবাসীর। এই বিষয়ে একাধিকবার এলাকায় পঞ্চায়েত সদস্য ও স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধানক জানিয়েও কোন সুরাহা হয়নি বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসীরা। অভিযোগ তাদের এই দুর্বিসহ ভাবে জীবন যাপন করার ক্ষেত্রে আজও পর্যন্ত কোনরকম উদ্যোগ নেওয়া হয়নি পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে। যদিও ওই এলাকার পঞ্চায়েত সদস্যের স্বামীর দাবি, তিনি বিজেপি সমর্থিত হওয়ার কারণে এলাকার জমা জল নিকাশির বিষয়ে কোনরকম উদ্যোগ নেয়নি তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েত বোর্ড।

এর পাশাপাশি এলাকার উন্নয়নমূলক একাধিক প্রকল্প বাস্তবায়ন করার ক্ষেত্রে ও তাকে বঞ্চিত করা হয় পঞ্চায়েতের উপর থেকে। যদিও বাবলা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান উন্নতি সর্দার বিজেপি মনোনীত পঞ্চায়েত সদস্যের তোলা এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তাঁর দাবি, কোনো রাজনৈতিক রঙ দেখে এখানে কাজ করানো হয় না। আমরা চেষ্টা করছি অতিদ্রুত যাতে এই জলের সমস্যা সমাধান করা যায়। তবে অবিলম্বে পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে এলাকার জল নিকাশির ব্যবস্থা গ্রহণ না করা হলে আন্দোলনের পথে নামার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ওই এলাকায় বসবাসকারী স্থানীয় বাসিন্দারা।