প্রধানমন্ত্রী কি শুনতে পান আমজনতার মন কি বাত?

সোমনাথ আদক, কলকাতা:  করোনা সংক্রমণ রুখতে দেশ জুড়ে লকডাউন। আর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মােদির লােকসভা কেন্দ্র বারাণসীতেই খিদের জ্বালায় ঘাস খাচ্ছে খুদেরা। এদিকে তিনিই বলেন মন কি বাত। যদিও বিরোধীরা অনেকেই কটাক্ষ করে বলেন, তিনি শুনতে নন, বলতে ভালোবাসেন। তাই প্রধানমন্ত্রীর নিজের লোকসভা কেন্দ্র বারানসীর এমন দৃশ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতে, আরও একবার বিরোধীরা ওই প্রশ্নটাই উস্কে দিল, প্রধানমন্ত্রী কী শুনতে পান আমজনতার মন কি বাত?

যদিও বারানসী যেমন প্রধানমন্ত্রীর লোকসভা কেন্দ্র তেমন যােগী আদিত্যনাথের রাজ্যেও বটে, যিনি দেশের এই বিপদের সময়েও রাম মন্দির নিয়ে সমানে রাজনীতি করে যাচ্ছেন। বারাণসীর বড়াগাও এলাকার কৈরিপুর গ্রামের ছটি শিশুর নুন দিয়ে ঘাস খাওয়ার এই ছবি সােশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হলে স্থানীয় প্রশাসনের টনক নড়ে। আধিকারিকরা পৌঁছে যান রেশনের সাহায্য নিয়ে। খোদ মােদির লােকসভায় এই চিত্র ধরা পড়াতে তীব্র সমালােচনা শুরু হয়ে দেশজুড়ে।

আরও পড়ুন: লকডাউন! গরিবের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আদৌ কী মানবিকতার পরিচয় দিচ্ছে রাজনৈতিক দলগুলি?

অনেকে ব্যঙ্গ করে বলছেন , এটাই আমাদের প্রধানমন্ত্রীর ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মােদি ১৪ মার্চ দেশজুড়ে ২১ দিনের লকডাউনের ঘােষণা করেন। এরফলে দিন আনা দিন খাওয়া দরিদ্র মানুষরা চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছে। বারাণসীর জেলাশাসক কৌশল রাজ শর্মা দাবি করেছেন , ওই শিশুগুলি আখড়ি ডাল ও ছােলা খাচ্ছিল গাছ থেকে। ওদের পরিবারের রেশন কার্ড রয়েছে। এ মাসের রেশনও তারা পেয়েছে। তারপরেও অবশ্য এই ঘটনার পর ওদের বাড়িতে আমরা অতিরিক্ত রেশন পৌঁছে দিয়েছি।

বুধবার ছটি শিশুকে মাটিতে বসে ঘাস ছিড়ে খেতে দেখা যায়। স্থানীয় ভাষায় একে ‘ আখড়ি ‘ বলে। মুসাহার সম্প্রদায়ের ওই শিশুগুলির বয়স পাঁচ বছর । কৈরিপুরের মুসাহার বস্তিতে ওরা থাকে । রানি , পূজা , নেরু , বিশাল , সােনি ও গােল নামের ওই ৬ শিশু খিদে সহ্য করতে না পেরে ঘাস খাচ্ছিল , যা সাধারণত গবাদি পশুর খাদ্য । আর একটি ভিডিয়ােতে শিশুগুলিকে একটি প্লেট থেকে “ ফালিয়ান ” নামক মটরদানা খেতে দেখা যায়। এটিও গবাদি পশুর খাবার। এদের মধ্যে কয়েকটি বাচ্চার বাবা দিনমজুর। কয়েকজনের বাবা ভিক্ষাও করে।

আরও পড়ুন: লকডাউনের মাঝে দুঃস্থ মানুষদের পাশে দাঁড়াল ব্যারাকপুরের আমরা সবাই ক্লাব

এই খবর চাউর হতেই বুধবার পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে ওদের পরিবারগুলিকে ১০ কেজি চাল , তেল , আলু ও অন্যান্য কিছু নিত্যপ্রয়ােজনীয় দ্রব্য সরবরাহ করা হয়। পরে তাদেরকে সাহায্য করা হবে বলে প্রশাসন আশ্বাস দিয়েছে। তবে প্রধানমন্ত্রীর ভিডিয়াে কনফারেন্স ও মন কি বাতের পাশাপাশি যদি এই অভুক্ত মানুষদের সন্ধান করেন, তবেই সেটা যুক্তিযুক্ত হবে বলে মনে করছেন দেশের আমজনতা ।

ক্লিক করে পড়ুন ‘সাতসকাল’ ই-খবরের কাগজ

The post satsakal 12-05-2021 appeared first on satsakal.com.