ভাদুতলার জঙ্গলে উদ্ধার নাবালিকার দেহ! পরিবারের অভিযোগে মাসি আটক

তারক হরি (পশ্চিম মেদিনীপুর): পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার শালবনীর ভাদুতলার জঙ্গলে থেকে এক নাবালিকার দেহ উদ্ধারকে ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ালো।

জানা যায়, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার শালবনী থানার গোবরু এলাকার কুচাকলা গ্রামে মামা বাড়িতে ছোট থেকেই থাকত খড়্গপুর লোকালের রূপনারায়ণপুর গ্রামের ওই সাত বছরের নাবালিকা কন্যা স্নেহা সিং।

শুক্রবার সকালে ওই নাবালিকাকে সাথে নিয়ে বের হয় মাসি প্রতিমা সিং। এরপর থেকেই নিখোঁজ ছিল দু’জনেই! বিকেলে খড়্গপুর গ্রামীণ থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরিও করেন মামাবাড়ির লোকেরা। শুরু হয় খোঁজাখুঁজি। এরপর, শনিবার সকালে শালবনী থানার ভাদুতলার জঙ্গলে পাতা কুড়াতে গিয়ে ঝোপের মধ্যে নাবালিকার দেহ দেখতে পান কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দারা। এরপর খবর দেওয়া হয়

শালবনী থানায়, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সাত বছরের ওই নাবালিকার দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

এরপরই নিখোঁজ থাকা ওই নাবালিকার পিতা নাম রঞ্জিত সিং খুনের অভিযোগ করেন মাসির বিরুদ্ধে! খড়্গপুর গ্রামীণ থানায় মাসি প্রতিমা সিং (৩০) এর নামে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে মাসিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। আগামীকাল তাকে আদালতে তোলা হবে। পুলিশের জেরায় অভিযুক্ত মাসির কথাবার্তায় নানা অসঙ্গতি ধরা পড়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। রহস্যজনক এই মৃত্যুর কারণ নিয়ে যথেষ্ঠ দ্বন্দ্বে রয়েছে পুলিশ। খুনের প্রকৃত রহস্য উদ্ধারে ইতিমধ্যেই তদন্তে শুরু হয়েছে। রহস্যজনক এই মৃত্যুর ঘটনায় শোকে বাকরুদ্ধ নাবালিকার পিতা-মাতা সহ আত্মীয়-পরিজনেরা।