বধুকে গলায় ফাঁস লাগিয়ে খুনের অভিযোগ উঠলো শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে

জৈদুল সেখ : মুর্শিদাবাদের সালারে গলায় ফাঁস লাগিয়ে গৃহবধূকে খুনের অভিযোগ উঠলো শ্বশুর বাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। মৃত গৃহবধূর মা আসমিয়া বিবি জানান ” বেশ কিছুদিন ধরেই মেয়েকে টাকার জন্য জ্বালা যন্ত্রনা করছিল, মেয়ে সুমি আমাকে সে কথা জানালে আমি বলি মা তোমার সমস্ত দেনা পাওনা শোধ করে দিয়েছি, তার পর শ্বাশুড়ি এবং জামাই নজর আরও এক লাখ টাকার জন্য চাপ সৃ‌ষ্টি করে গত বৃহস্পতিবার এবং বলে টাকা না দিলে তোকে শেষ করে ফেলব, মেয়ে সেই কথা কাঁদতে কাঁদতে আমাকে রাত্রে বেলায় বলে মা তুমি এখুনি এসো আমায় খুব ভয় লাগছে! তার পর সকালে মেয়েকে মেরে গলায় ফাঁস লাগিয়ে বাড়ি থেকে সবাই পালিয়ে গেছে। ”

উল্লেখ্য পূর্ব-বর্ধমানের কেতুগ্রাম থানার আড়গুন গ্রামের মেয়ে সুমি খাতুনের গত এক বছর সাত মাস আগে বিয়ে হয়েছিল মুর্শিদাবাদের সালারের বাসিন্দা নাজির শেখের। বিয়ের পর থেকেই অশান্তি লেগেই ছিল সংসারে। অবশেষে শুক্রবার গলায় ওড়না বাঁধা ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় কুড়ি বছরের সুমিকে। প্রথমে তার দেহ সালার প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে কান্দি মহকুমা হাসপাতালে দেহ পাঠানো হয় ময়নাতদন্তের জন্য।

এদিকে পড়শীরা সুমি খাতুনের পূর্ব-বর্ধমানের গ্রামের বাড়িতে খবর দিলে পরিবারের লোকজন ছুটে আসেন সালারে। এরপর সালার থানায় লিখিত অভিযোগ করেন সুমির মা আসমিয়া বিবি। তার অভিযোগ পণের দাবিতে নাজির শেখ ও তার পরিবারের লোকজন খুন করেছে তার মেয়েকে। পুরো বিষয়টি তদন্ত করে মেয়র মৃত্যুর যথোপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা করার দাবি জানিয়েছেন পুলিশ প্রশাসনের কাছে।