5G-র হাত ধরে আরও ডিজিটাল হতে চলেছে ভারত

5G-র হাত ধরে এবার আরও ডিজিটাল হতে চলেছে ভারত। প্রযুক্তির এই অগ্রগতির হাত ধরে একটা সিনেমা ডাউনলোড করতে সময় লাগবে মাত্র ৬ সেকেন্ড! রিলায়েন্স জিও ইনফোকম লিমিটেড এবং স্যামসং ইলেট্রনিক্স এবার নিয়ে এল নেক্সট জেনারেশন টেকনোলজি৷ জিও এবং স্যামসাং নিজেদের 5Gও LTE-র কম্বো নিয়ে এল ২০১৯ সালে৷ সংস্থা দুটি একে অপরের হাত ধরে এত দিন শুধুমাত্র এগিয়ে চলছিল। এবার সেই পথ ধরে আরও এগিয়ে যাবে ভারত৷

এই 5G-র স্পিড প্রতি সেকেন্ডে ১০ গিগাবাইট। বর্তমানে ব্যবহারকারীরা প্রতি সেকেন্ডে ১ গিগাবাইট স্পিডে ডেটা ব্যবহার করতে পারেন। অর্থাৎ হিসেব করে দেখা যাচ্ছে, একটা সিনেমা ডাউনলোড করতে সময় লাগছে মাত্র ৬ সেকেন্ডের মতো। স্যামসাঙের সঙ্গে পার্টনারশিপে জিও পৃথিবীর সবচেয়ে বড় গ্রিনফিল্ড এবং সব আইপি বেসড 4G LTE network৷ যা থেকে বর্তমানে ৩৪০ মিলিয়ন LTE উপভোক্তা পরিষেবা পেয়ে থাকেন। নতুন ব্যবসায়িক সুযোগ তৈরি হতে চলেছে 5G NSA মোডে৷ উন্নত প্রযুক্তির 4G LTE এবং 5G টেকনোলজি কম্বিনেশনে ডুয়াল কানেকটেড মোডে এই কাজ হবে বলে জানা গিয়েছে৷

Reliance Jio Infocomm Ltd-র পক্ষ থেকে প্রেসিডেন্ট ম্যাথিউ ওমেন জানিয়েছেন, আমরা জিও। আমরা আমাদের কো-পার্টনার Samsung-র সঙ্গে ভারতকে প্রযুক্তির দিক দিয়ে এগিয়ে যেতে সাহায্য করছি৷ Samsung Electronics-র বিজনেস হেড পল কিংহুন চিয়ুন জানিয়েছেন, স্যামসং জিও -র সঙ্গে নেক্সট জেনারেশন ইনোভেশন পৌঁছে দেওয়ার জন্য বদ্ধপরিকর৷ যা ৫জি ডিজিটাল করে ভারতকে ডিজিটাল ভারত হওয়ার দিকে এগিয়ে দেবে৷ স্যামসং নেটওয়ার্কের ৫জি পোর্টফোলিওতে থাকবে ৩.৫ GHzসলিউশন৷ 5G-র হাত ধরে আরও ডিজিটাল হতে চলেছে ভারত

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *