রাজ্যে আংশিক লকডাউন, অথচ জটেশ্বর বাজারে উল্টো ছবি

তমাল চক্রবর্তী (আলিপুরদুয়ার): করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে জারি করা হয়েছে সরকারি নির্দেশিকা। সেই অনুযায়ী রাজ্যে চলছে আংশিক লকডাউন। তাতে দোকান বাজার খোলা থাকলেও, বেঁধে দেওয়া হয়েছে সময়সীমা। সকাল ৭টা থেকে ১০টা পর্যন্ত বসবে বাজার হাট। আবার বিকেল ৩টে থেকে ৫টা পর্যন্ত দোকান বাজার হাট খোলা রাখার অনুমতি মিলেছে। তবে আংশিক লকডাউনের বাইরে রাখা হয়েছে ওষুধের দোকানকে। কিন্তু শনিবার ফালাকাটা ব্লকের জটেশ্বর বাজারের বেশ কয়েকটি জায়গায় দেখা গেল উল্টো ছবি। যেখানে বেলা সাড়ে দশটা পেরিয়ে যাওয়ার পরেও খোলা থাকতে দেখা গেল বাজার হাট। পসরা নিয়ে বসে থাকতে দেখা গেল ফল, সবজি বিক্রেতাদের। চললো বেচাকেনা।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের গতি বেড়েছে বিভিন্ন জেলায়। প্রতিদিনই হু হু করে বাড়ছে সংক্রমণ ও মৃতের সংখ্যা। কিন্তু তারপরও হেলদোল নেই একশ্রেণির মানুষের। এদিকে কেউ কেউ চায়ের দোকানে আড্ডাও দিচ্ছেন। এদিকে রাস্তায় দেখা যায় পুলিশ টহল। তবে আংশিক লকডাউনের প্রথম দিন হওয়ায় এদিন কিছুটা নরম আচরণ দেখা গেল পুলিশেরও।এদিকে আলিপুরদুয়ার জেলা সদরের ছবিটা আবার অন্যরকম। সরকারি নির্দেশিকা মেনে সকাল ১০ টার পর বেশিরভাগ দোকানই বন্ধ করে দেন ব্যবসায়ীরা। এদিকে ঘড়ির কাটায় ১০ টা বাজতেই আলিপুরদুয়ারের জনপথ এক প্রকার জনশূ্ন্য হয়ে যায়। বন্ধ ছিল বাজার-হাট। যানবাহনের সংখ্যাও ছিল যথেষ্ট কম। এদিন যাত্রী সংখ্যাও ছিল খুবই কম। অধিকাংশ দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। শুধুমাত্র ওষুধের দোকানের মতো জরুরি পরিষেবা প্রদানকারী দোকান গুলি খোলা রয়েছে। শহরের বিভিন্ন পাড়া এলাকা গুলিতেও এমনই চিত্র ধরা পড়ছে।

প্রসঙ্গত, বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কথা মথায় রেখে ইতিমধ্যেই রাজ্যে শুরু হয়েছে আংশিক লকডাউন। রাজ্যের সমস্ত শপিং মল, সিনেমা হল, রেস্তোরাঁ, জিমে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে নবান্ন। নির্দেশ বলা হয়েছে, রেস্তোরাঁ, বিউটি পার্লার, স্পা, জিম, স্যুইমিং পুল,সিনেমা হল, বার, স্পোর্টস কপপ্লেক্স, অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ রাখতে হবে। বাজার হাট খোলা থাকবে সকাল ৭টা থেকে ১০টা এবং দুপুর ৩টে থেকে ৫টা পর্যন্ত। তবে দিনের যে যে সময়ে দোকান বাজার খোলার কথা বলা হয়েছে তার যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ব্যবসায়ীদেরই একাংশ।

ক্লিক করে পড়ুন ‘সাতসকাল’ ই-খবরের কাগজ

The post satsakal 06-05-2021 appeared first on satsakal.com.