এনআরসি এবং সিএএ-র বিরূদ্ধে প্রতিবাদীরা দেশদ্রোহী না দেশপ্রেমিক?

নাগরিকপঞ্জী এবং সিএএ-এর বিরোধীতায় যাঁরা প্রতিবাদ করছেন তাঁরা দেশদ্রোহী না দেশপ্রেমিক?

নরেন্দ্রনাথ কুলে: এনআরসি এবং সিএএ-র বিরূদ্ধে প্রতিবাদীরা দেশদ্রোহী না দেশপ্রেমিক? নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্য থেকে আগুন বাংলা হয়ে সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ল। দেশজুড়ে ছাত্র, যুব, বিদ্বজ্জনেরাও পথে নেমেছেন। দিল্লিতে ছাত্রদের ওপর লাঠিচার্জ চলেছে নির্বিচারে। অবশেষে লক্ষ্ণৌ ও ম্যাঙ্গালোরে তিনজনের প্রাণ গেল পুলিশের গুলিতে।  বেঙ্গালুরুর বিশিষ্ট ইতিহাসবিদ রামচন্দ্র গুহ পুলিশের হাতে হেনস্থা হলেন। সরকার পক্ষের বিশিষ্টজনেরা এই উত্তাল সময়ের জন্য পুরোপুরি বিরোধীদের দিকে আঙুল তুলছেন। so

so তাঁরা বলছেন, বিরোধীরা মানুষকে ভুল বুঝিয়ে অশান্তি করছে। তার মানে যাঁরা এই আইনের বিপক্ষে তাঁরা কি শান্তি ভঙ্গকারী? অশান্তির দায় কি শুধু তাঁদের, সরকারের নয়? বিরোধীদের প্রতিবাদ মানে কেউ কেউ আবার বলছেন দেশদ্রোহীতা। তাহলে রামচন্দ্র গুহর মতো মানুষ দেশদ্রোহী? তবে দেশপ্রেমিক কে? আজকের এই সময়ে দেশপ্রেমিক শব্দটি কী? so

আরও পড়ুন: পুলিশের রিভালবারে কন্ডোম! বিজেপি সাংসদ এটা কী বললেন?

so সে সম্পর্কে  রবীন্দ্রনাথের একটি কথা এখানে বলা যেতে পারে। ‘প্যাট্রিয়টিজম নামক পদার্থ, ইহার মধ্যে যেটুকু সত্য ছিল প্রতিদিন সকলে পড়িয়া সেটাকে তুলা ধুনিয়া একটা প্রকান্ড মিথ্যা করিয়া তুলিয়াছে, এখন এই তৈরি  বুলিটাকে প্রাণপণ চেষ্টায় সত্য করিয়া তুলিবার জন্য   কত কৃত্রিম উপায়, কত অলীক উদ্দীপনা, কত অন্যায় শিক্ষা, কত গড়িয়া তোলা বিদ্বেষ, কত কূট যুক্তি, কত ধর্মের ভালো সৃষ্ট হইতেছে তাহার সীমা সংখ্যা নাই।’

কবির আরও একটি কথা উল্লেখ করা যায়। তিনি বলেছেন, ‘নেশন গড়ে ওঠে সত্য নিয়ে, কিন্তু ন্যাশনালিজম নয়।’ তাহলে কবিকে কী চোখে দেখবেন?

কবির আরও একটি কথা উল্লেখ করা যায়। তিনি বলেছেন, ‘নেশন গড়ে ওঠে সত্য নিয়ে, কিন্তু ন্যাশনালিজম নয়। তাহলে কবিকে কী চোখে দেখবেন?’ এনআরসি এবং সিএএ-র বিরূদ্ধে প্রতিবাদীরা দেশদ্রোহী না দেশপ্রেমিক?

ক্লিক করে পড়ুন ‘সাতসকাল’ ই-খবরের কাগজ

The post satsakal 12-05-2021 appeared first on satsakal.com.