কোন দলে যাবেন শোভন? রাজনৈতিক মহলে জল্পনা তুঙ্গে

রাজনৈতিক মহলে জোর জল্পনা শোভন তুমি কার?

বিকাশচন্দ্র ঘোষ: কোন দলে যাবেন শোভন? রাজনৈতিক মহলে জল্পনা তুঙ্গে। যেন সাপলুডোর খেলা চলছে। কখনও মনে হচ্ছে তিনি তৃণমূল শিবিরে ঝুঁকে আবার কখনও পদ্ম শিবিরে। সরকারিভাবে দল ছেড়েছেন। যোগ দিয়েছেন পদ্মে। কিন্তু যে সক্রিয়তা ঘাসফুল শিবিরে থাকার সময় তিনি দেখাতেন এখন যেন ম্রিয়মাণ। নেই দৌড়ঝাঁপ, নেই কর্মসূচিতে ছোটা। আপাদমস্তক রাজনীতিবিদ ঘরবন্দি। তবে সংবাদ শিরোনামে উঠে আসছেন বারেবারেই। তিনি শোভন চট্টোপাধ্যায়। কলকাতা প্রাক্তন মহানাগরিক এবং রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী। আরও সহজ করে বললে তিনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রিয় কানন। রাজনৈতিক বিচ্ছেদ ঘটলেও ভাইফোঁটার দিন তিনি সটান পৌঁছে গিয়েছিলেন দিদির বাড়িতে। আর তা দেখে রাজনৈতিক মহলে এই ধারণা স্পষ্ট হয়েছিল ঘরে ফিরতে চলেছেন কানন। কিন্তু বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের ইস্তফাপত্র রাজ্য সরকার গ্রহণ করার পর সেই সম্ভাবনা ক্ষীণ হয়। তৃণমূল শিবির থেকে শোভন-এর দুরত্ব যেন বেড়ে যায়। এরইমধ্যে বিভিন্ন সূত্রে সংবাদে উঠে আসে বিজেপির সঙ্গে তার তিক্ততা দূর হওয়ার খবর। তাঁকে সামনে রেখেই পুরভোটে বিজেপি টিম সাজাচ্ছে এমন সংবাদ উঠে আসে। এই নিয়ে যখন জল্পনা তুঙ্গে ঠিক সেই সময় মঙ্গলবার শোভন বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মধ্যে টানা দেড় ঘণ্টা বৈঠক। বৈঠকে ঠিক কী আলোচনা হয়েছে তা জানা যায়নি। মুখ খোলেনি কোনও পক্ষই। তবে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ মহলের ধারণা শোভনের ঘরে ফেরানো নিয়েই আলোচনা হয়েছে। তবে এই আলোচনা কতটা ফলপ্রসূ হয়েছে তা সময়ই বলবে।

ভোট বড় বালাই। পুরভোট দরজায় কড়া নাড়ছে। তাই ভোটের আগে শোভনের কদর বাড়ছে এমনটাই মত রাজনৈতিক ওয়াকিবহাল মহলের একাংশের। শাসক কিংবা বিরোধী দু’পক্ষই শোভনকে পেতে চাইছে বলেই মনে করছে তাঁরা। সরকারিভাবে শোভন এখন বিজেপির সদস্য হলেও আসলে তাঁর রাজনৈতিক অস্তিত্ত্ব সাপলুডোর মতই ঝুলে। তাই রাজনৈতিক মহলে কানাঘুষা চলছে শোভন এই মুহূর্তে তুমি কার?

আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই রাজ্যে পুরভোটের দামামা বাজতে চলেছে। কলকাতা সহ রাজ্যের একাধিক পুরসভায় ভোটগ্রহণ পর্ব চলবে। ইতিমধ্যেই রাজ্যের অনেক পুরসভায় মেয়াদ শেষ হয়ে গিয়েছে। সেইসব পৌরসভার নির্বাচিত পুরবোর্ড না থাকায় প্রশাসনিকভাবে পরিচালনা চলছে। আসন সংরক্ষণ পর্ব শেষ হয়েছে। মার্চ কিংবা এপ্রিল মাস নাগাদ এইসব পুরসভায় পুরভোট অনুষ্ঠিত হবে এমনটাই মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: তৃণমূলকে আটকাতে গেরুয়া শিবিরের দিকেই ঝুঁকছে সিপিএম

পুরভোটে বাংলার রাজনৈতিক ছবিটা ঠিক কেমন হবে তা নিয়ে ইতিমধ্যেই বিভিন্ন মহলে নানান চর্চা শুরু হয়ে গিয়েছে। এ রাজ্যে লোকসভা ভোটে বিজেপি বড় সাফল্য পায়। শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসকে ঘায়েল করে ১৮টি আসন নিজেদের ঝোলায় তুলে নিতে সক্ষম হয়েছিল বিজেপি। এরপর থেকেই বঙ্গের বিজেপির ম্যানেজাররা স্বপ্ন দেখতে শুরু করে পুরসভার নির্বাচনে তাঁরা বড়োসড়ো সাফল্য পাবে। এমনকী ২০২১-এর বিধানসভা ভোটের আগে এই পৌরসভার নির্বাচনকে সেমিফাইনাল হিসাবেও দেখতে শুরু করেন বিজেপির বহু নেতা। বিজেপি শিবির থেকে এমন অভিযোগও করা হচ্ছিল পরাজিত হওয়ার ভয়ে তৃণমূল নির্দিষ্ট সময়ে পৌরসভার নির্বাচন করতে চাইছে না। তবে রাজ্য নির্বাচন কমিশন যে প্রস্তুতি শুরু করেছে তাতে বলা যেতেই পারে আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই রাজ্যে পুরভোট অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। নবান্ন পুরভোটের ছাড়পত্র দিয়ে দিয়েছে বলেও বিশেষ সূত্রে জানা গিয়েছে। গত লোকসভা ভোটের ফলাফলের পর বিজেপির এই পুরভোট নিয়ে যে উৎসাহ দেখা গিয়েছিল এখন কিন্তু তার সিকিভাগও নেই। পুরভোটের কথা গত কয়েক মাসে মুখেও আনেননি এরাজ্যের বিজেপির শীর্ষ নেতারা। বিশেষ করে নিজেদের দখলে নিয়ে আসা পুরসভাগুলি যখন এক এক করে তৃণমূল নিজেদের কব্জায় ফিরিয়ে নিতে সক্ষম হয় তারপর থেকেই অনেকটায় হতাশার ছবি ৬ নম্বর মুরলিধর সেনের গেরুয়া বাড়িতে। সেই সঙ্গে রাজ্যের তিনটি বিধানসভা উপনির্বাচনে চূড়ান্ত বিপর্যয় বিজেপিকে বেশ ব্যাকফুটে ঠেলে দিয়েছে। আর সেই সুযোগটাই কাজে লাগিয়ে পায়ের তলার হারানো মাটি পুনরুদ্ধার করে ফের জাঁকিয়ে বসতে চাইছে ঘাসফুল শিবির। কোন দলে যাবেন শোভন? রাজনৈতিক মহলে জল্পনা তুঙ্গে

ক্লিক করে পড়ুন ‘সাতসকাল’ ই-খবরের কাগজ

The post satsakal 06-05-2021 appeared first on satsakal.com.