জেপি নাড্ডা কি মোদি-শাহ জুটি থেকে বেরতে পারবেন?

বিজেপির নতুন সভাপতিকে নিয়ে বিভিন্ন মহলে উঠছে প্রশ্ন

বিকাশ চন্দ্র ঘোষ: জেপি নাড্ডা কি মোদি-শাহ জুটি থেকে বেরতে পারবেন? অমিত শাহ জামানার পর এবার বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি পদে এলেন জেপি নাড্ডা। ভারতীয় জনতা পার্টির ইতিহাসে বাজপেয়ী-আদবানি জুটির পর নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহ জুটি সর্বাধিক হিট। এমনও বলা যেতে পারে আডবাণী-বাজপেয়ী জুটির চেয়েও বেশি সম্পৃক্ত ছিল মোদি-শাহ জুটি। এই জুটির হাত ধরেই ভারতবর্ষের রাজনীতিতে বিজেপি সর্বশক্তিমান হয়ে উঠতে সক্ষম হয়। সাফল্যের গ্রাফও উর্ধ্বসীমায়। সরকার পরিচালনার ক্ষেত্রে এই জুটি এমন অনেক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন যা ভারতবর্ষে আগের কোনও সরকার করে দেখায়নি। পারিনি আডবাণী-বাজপেয়ী জুটিও।

অমিত শাহ দ্বিতীয় মোদি সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। আর তাই দলীয় সংবিধান মেনে তাঁকে সর্বভারতীয় সভাপতি পদ থেকে সরতে হল। তাঁর স্থলাভিষিক্ত হলেন জেপি নাড্ড। বিজেপির অন্দরমহলে তিনি অমিত শাহ-নরেন্দ্র মোদির ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত। আর তাই এই জুটি নাড্ডার উপর ভরসা রেখেছেন, আস্থা রেখেছেন। আর এখানেই বিভিন্ন মহল থেকে প্রশ্ন উঠেছে বিজেপির নতুন এই সর্বভারতীয় সভাপতি পারবেন কি মোদি-শাহ’র ছায়া থেকে বেরিয়ে আসতে।

আরও পড়ুন: তৃণমূলকে আটকাতে গেরুয়া শিবিরের দিকেই ঝুঁকছে সিপিএম

আবার রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশের বক্তব্য, বিজেপির সাংগঠনিক ক্ষমতা যেভাবে অমিত শাহ এবং নরেন্দ্র মোদি গত কয়েক বছরে নিজেদের কুক্ষিগত করে রেখেছেন তাতে করে যেই সভাপতি হন না কেন নিজের কিছুই করার থাকবে না। এই জুটির নির্দেশ কিংবা সিদ্ধান্ত মেনেই তাঁকে কাজ করতে হবে। মোদি-শাহ আমলে লালকৃষ্ণ আডবাণী, মুরলী মনোহর যোশী, যশবন্ত সিনহাদের মতন এক সময়কার শীর্ষ এবং সর্বোচ্চ নেতাদেরও নিষ্ক্রিয় হতে হয়েছিল। হারিয়ে যেতে হয়েছিল রাজনীতির মূলস্রোত থেকে। বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে এখনও শেষ কথা মোদি-শাহ জুটি। তাই নতুন সভাপতির আদতে সিল প্যাড ছাড়া বাকি কতটুকু ক্ষমতা থাকবে তা সময়ই জবাব দেবে। জেপি নাড্ডার পক্ষে সভাপতি হিসাবে একক সিদ্ধান্ত গ্রহণের কতটা স্বাধীনতা থাকবে তা নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। রাজনৈতিক ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা নিজস্ব স্বতন্ত্রতা দেখানোর মতো বিশেষ কোনও সুযোগই পাবেন না এই নতুন সভাপতি।

তবে বিভিন্ন রাজ্যের নির্বাচনে গেরুয়া শিবিরের ফলাফল মোটেই সন্তোষজনক নয়। গত লোকসভা ভোটের দেশজুড়ে বিজেপির যে বিরাট সাফল্য দেখা গিয়েছিল বিধানসভার নির্বাচনে কিন্তু তা অনেকটাই ফিকে হয়ে আসছে। হাতছাড়া হয়েছে মহারাষ্ট্র, হাতছাড়া হয়েছে ঝাড়খন্ড। সামনে নির্বাচন বিহার, দিল্লির মতো রাজ্যে। এইসব রাজ্যেও যদি বিজেপির ফল হতাশাজনক হয় তাহলে প্রশ্নের মুখে পড়তে হবে মোদি-শাহ জুটিকে। আর সেই ব্যর্থতার দায় নতুন সভাপতির ঘাড়েও বর্তাবে। আর সেই অংক মাথায় রেখে জেপি নাড্ডা কি ধীরে ধীরে এই জুটির ছায়া থেকে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করবেন? জবাব মিলবে সঠিক সময়েই। জেপি নাড্ডা কি মোদি-শাহ জুটি থেকে বেরতে পারবেন?

ক্লিক করে পড়ুন ‘সাতসকাল’ ই-খবরের কাগজ

The post satsakal 08-05-2021 appeared first on satsakal.com.