অবশেষে ট্রফি জিতলেন সিন্ধু

অপেক্ষার অবসান। দুই বছর আবার ট্রফি জিতলেন পিভি সিন্ধু। রবিবার লখনউতে বাবু বেনারসী দাস ইন্ডোর স্টেডিয়ামে আয়োজিত মহিলা সিঙ্গলস ফাইনালে মালবিকা বানসোদকে ২১-১৩, ২১-১৬ হারিয়েছেন সিন্ধু।
খেলা গড়াল মাত্র ৩৫ মিনিট। করোনা ভাইরাসে জর্জরিত টুর্নামেন্টের ফাইনালের প্রথম গেমে দাপট দেখিয়ে ২১-১৩ ব্যবধানে জেতেন সিন্ধু। দ্বিতীয় গেমে মালভিকা তুলনামূলক আরও কঠিন চ্যালেঞ্জ জানালেও, ২৬ বছর বয়সী সিন্ধুর অভিজ্ঞতা এবং দক্ষতা একটু বেশিই ছিল। ২১-১৬ ব্যবধানে দ্বিতীয় গেমও নিজের নামে করে টুর্নামেন্ট জিতে নেন সিন্ধু।২০১৯ সালে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ের পর থেকে একাধিক টুর্নামেন্টের সেমিফাইনাল বা কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে হারতে হয়েছে ভারতের সেরা ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়কে। মাঝে টোকিও অলিম্পিকে  ব্রোঞ্জ প্রাপ্তি আছে। কিন্তু ব্যাডমিন্টন দুনিয়ায় নিজের দাপট যেন হারিয়ে ফেলছিলেন হায়দরাবাদি শাটলার।প্রতিপক্ষকে স্ট্রেট গেমে উড়িয়ে দিয়ে চ্যাম্পিয়ন হলেন হায়দরাবাদি শাটলার।এই নিয়ে দ্বিতীয়বার সৈয়দ মোদি সুপার ৩০০-এর মঞ্চে সেরার শিরোপা পেলেন সিন্ধু। গত বছর টোকিও অলিম্পিকের  সেমিফাইনালে পরাস্ত হয়েছিলেন তিনি। তবে দেশকে ব্রোঞ্জ পদক এনে দিয়ে গড়েছিলেন ইতিহাস।
করোনা কাঁটায় বিদ্ধ হয়েছে এই টুর্নামেন্ট। তাই সংক্রমণের আশঙ্কা নিয়েই শীর্ষ বাছাই হিসেবে রবিবার কোর্টে নেমেছিলেন সিন্ধু। তবে খেলা শুরু হতেই পুরনো চেনা ছন্দে ধরা দেন তিনি
এ দিকে, পুরুষদের ফাইনাল ম্যাচ বাতিল হয়ে গেল। জানা গিয়েছে, এক প্রতিযোগীর করোনা ধরা পড়েছে। তবে তাঁর নাম প্রকাশ করা হয়নি আন্তর্জাতিক ব্যাডমিন্টন সংস্থার তরফে। পরে জানানো হবে এই ম্যাচে অপর প্রতিপক্ষকে বিজয়ী ঘোষণা করা হবে নাকি দু’জনেই যুগ্ম ভাবে বিজয়ী হবেন। ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিলেন ফ্রান্সের দুই খেলোয়াড় আর্নড মার্কলে এবং লুকাস ক্লেয়ারবাউট।
সিন্ধুর জয়ের দিনে আশা জাগালেন সানিয়া মির্জা।
ওপেনের মিক্সড ডাবলসের শেষ আটে জায়গা করে নিয়েছে ভারতের সানিয়া মির্জা ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাজীব রামের জুটি। মেয়েদের ডাবলস থেকে ছিটকে গেলেও মিক্সড ডাবলসে এখনও লড়াই জারি রেখেছেন ভারতীয় টেনিস সুন্দরী। অস্ট্রেলিয়ার পেরেজ ও নেদারল্যান্ডসের মিডলকুপ জুটিকে উড়িয়ে দিলেন স্ট্রেট সেটে। প্রথম সেট টাইব্রেকারে নিষ্পত্তি হলেও দ্বিতীয় সেটে সহজেই প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দেন ইন্দো-আমেরিকান জুটি। খেলার ফল ৭-৬ (৮/৬), ৬-৪। সানিয়া-রাজীব জুটি ম্যাচ জিততে সময় নেন ১ ঘণ্টা ২৭ মিনিট।ম্যাচ জেতার পর সতীর্থ রামের প্রশংসা করে সানিয়া বললেন, ” ও ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ সময় এমন কিছু শট খেলল, যাতে আমাদের জয়ের কাজটা সহজ হয়ে গেল। তা ছাড়া আমাদের মধ্যে বোঝাপড়াটাও দারুণ গড়ে উঠেছে।

টাচ করুন, দেখুন আপনার প্রিয় অভিনেত্রীদের অসংখ্য ফটো