ধর্ষণে অভিযুক্তের পরিবারের হাতে নিগৃহীত নির্যাতিার পরিবার

শ‍্যাম বিশ্বাস (উওর ২৪ পরগণা): নির্যাতিতার ও পরিবার আক্রান্ত ধর্ষণে অভিযুক্ত পরিবারের হাতে। পুনরায় থানায় লিখিত অভিযোগ অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নেমেছে হাসনাবাদ থানার পুলিশ। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ভিন রাজ্যে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ ও বিক্রির অভিযোগ যুবকের বিরুদ্ধে, অভিযুক্ত যুবক পকসো আইনের জেল হেপাজতে রয়েছে।

বসিরহাট মহাকুমার হাসনাবাদ থানা আঙ্গারা গ্রামে বছর ১৭এর নাবালিকা ছাত্রী প্রতিবেশী যুবক বছর পঁয়ত্রিশের সুভাষ মন্ডল, তাকে ভালোবাসার ও বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গত ২০১৮ সালে ভিন রাজ্যে নিজে গিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করার পর মোটা টাকার বিনিমযয়ে বিক্রি করার অভিযোগ প্রতিবেশী যুবক সুভাষ মন্ডলের বিরুদ্ধে।

হাসনাবাদ থানায় অভিযুক্ত যুবকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ অপহরণ এবং পাচারের লিখিত অভিযোগ করেন ছাত্রীর বাবা। ২০১৮ সালের শেষের দিকে অভিযোগের ভিত্তিতে চাইল্ড লাইন ও হাসনাবাদ থানার পুলিশ যৌথ উদ্যোগে কেরালা থেকে ছাত্র-যুবককে রাজ্যে ফিরিয়ে আনে। অভিযোগের ভিত্তিতে যুবক গ্রেপ্তার হয়, তিনি এখন জেল হেপাজতে রয়েছেন।

তারপর আজ শনিবার সকাল বেলায় নির্যাতিতা ও তার বাবা সুনীল প্রামানিক বাজারে গেলে সেখানে অভিযুক্তের পরিবারের হাতে নিগৃহীত হন এবং তাদের মারধর করা হয় হুমকি দেয়া হয় প্রাণনাশের। তার পাশাপাশি বলা হয় এই অভিযোগ তুলে নিতে হবে, না নিলে এর জন্য চরম শাস্তি পাবে, এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে নির্যাতিতার পরিবারের মধ্যে।

নির্যাতিতার পরিবার পুনরায় আবার লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে হাসনাবাদ থানায়, এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। নির্যাতিতার পরিবার অভিযুক্ত পরিবারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

ক্লিক করে পড়ুন ‘সাতসকাল’ ই-খবরের কাগজ

The post satsakal 01-08-2021 appeared first on satsakal.com.