ভাঙা বিমান দেখতে পর্যটকের ভিড়

নকশা, তাও আবার ভাঙা বিমানের। আর তা দেখতে ভিড় উপচে পড়ছে পর‌্যটকদের। বিমানের ভিতরকার নকশার প্রতি সাধারণ মানুষের আকর্ষণ থাকা খুবই স্বাভাবিক। আর সেটি যদি আমরা হাতের কাছ থেকে দেখতে পাই, তাহলে তো কোনও কথাই নেই। আসলে বিমানের প্রতি আকর্ষণ আমাদের চিরন্তন। আকাশ দিয়ে উড়ে যখন বিমান পাড়ি দেয় কোনও দূর দেশের উদ্দেশে, তখন এখনও আমরা ঘাড় ঘুরিয়ে দেখি। আর সেই বিমানকে আমরা যখন একটু অন্যভাবে হাতের কাছে পাই, আর তার ভিতরের নকশা থেকে আমরা যখন অনেক কিছু জ্ঞান আহরণ করতে পারি তখন আমাদের ভালোলাগার পরিধিটা আরও বেড়ে যায়।

বিমানে করে আমরা এক জায়গা থেকে আর এক জায়গা পাড়ি দিই, একথা আমাদের সকলের জানা। খুব দ্রুতগতিতে আমরা এক দেশ থেকে অন্য দেশে পৌঁছে যাই। বিমানকে নিজের সুবিধার জন্য এইভাবে ব্যবহার করতে আমরা অভ্যস্ত। তবে বিমান শুধু যে মানুষের বিনোদনের কারণ হতে পারে এটা অনেকেরই অজানা। তবে ভাঙা বিমানের নকশা দেখার জন্যও মানুষের আগ্রহ দিন দিন বাড়ছে। মানুষকে আনন্দ দিতে বা বিমানের নকশা এত সামনে থেকে মানুষকে দেখতে পাওয়ার সুযোগ করে দিচ্ছে থাইল্যান্ড। তাদের এই প্রয়াসের জন্য ভ্রমণপিপাসু মানুষ অভিনব ভাবে তাঁদের ভ্রমণের খিদেও মেটাতে পারছেন। বিমান বা উড়োজাহাজকে তার নিজস্ব বৈশিষ্ট্য থেকে বেরিয়ে একটু অন্যভাবে দেখলেন ভ্রমণপিপাসু মানুষ।

থাইল্যান্ডে এমন একটি স্থান আছে যেখানে খারাপ হওয়া বিমানগুলিকে রাখা হয়।  সেগুলিকে শুধু এমনিই ফেলে রাখা হয় না, সেগুলিকে সুন্দর ভাবে সাজিয়ে রাখা হয়। যার আকর্ষণে দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসেন বহু মানুষ। ফোটোগ্রাফাররা তার ছবিও তোলেন। তবে ওই বিমানগুলির পাশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে অনেক শিশুর জিনিসপত্র। তাদের ব্যক্তিগত ব্যবহার‌্য জিনিসপত্রও পড়ে থাকতে দেখা যায়। অনেকের মতে, কোনও পরিবার হয়তো এখানে বাস করত, তারা হয়তো এই জিনিসগুলি এখানে ফেলে রেখে গেছে। বিমানগুলিকে আবার কখনও কখনও দেখে মনে হয়, সেইগুলিকে হাইজ্যাক করা হয়েছিল। হয়তো এখানে তাদের ব্যবহার‌্য জিনিস পড়ে আছে।

এর পিছনে রয়েছে অন্য একটি গল্প। স্থানীয় লোকদের মতে, ওই স্থানটিতে নাকি অশরীরী আত্মারা আছে যারা ওই জায়গাটিকে পাহারা দেয়। তাদের অস্তিত্ব নাকি অনুভবও করা যায়। সেই রোমাঞ্চকর অনুভতির কথা লোকমুখে পরিচিত হওয়ার পর থেকে এই স্থানটিকে দেখতে আরও ভিড় বাড়ছে মানুষের।  যেসব পর‌্যটক এই স্থানটির আকর্ষণে এখানে ভিড় বাড়াচ্ছেন তাঁদের কাছ থেকে ৩০০ বাথ (থাইল্যান্ডের টাকার মূল্য) নেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।


টাচ করুন, দেখুন আপনার প্রিয় অভিনেত্রীদের অসংখ্য ফটো