‘সাংসদ তহবিলের ৭০ লক্ষ টাকা আটকে রেখে সুদটা খাচ্ছে রাজ্য সরকার’, দাবি দিলীপ ঘোষের

শর্মিলা চন্দ্র
 
পুরভোটের আগে শাসক দলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন মেদিনীপুরের বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ। নিজের এলাকার উন্নয়ন নিয়ে প্রসঙ্গে এই বিস্ফোরক দাবি করেন তিনি। কটাক্ষের সুরে বলেন, “সাংসদ তহবিলের ৭০ লক্ষ টাকা আটকে রেখে সুদটা খাচ্ছে রাজ্য সরকার।” সোশ্যাল মিডিয়ায় এই মর্মে পোস্টও করেন তিনি।
দিনকয়েক আগেই মেদিনীপুর-খড়গপুর উন্নয়ন পর্ষদের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছিলেন স্থানীয় বিজেপি সাংসদ। তিনি অভিযোগ করেছিলেন, শুধুমাত্র রাজনৈতিক স্বার্থে মেদিনীপুর-খড়গপুর উন্নয়ন পর্ষদ বা এমকেডিএ ছোট কোনও কাজেরও অনুমতি দিচ্ছে না। সেই অভিযোগের পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় সরাসরি রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন বিজেপি সাংসদ।
ফেসবুক পোস্টে দিলীপ ঘোষের অভিযোগ, “মেদিনীপুর-খড়গপুর ডেভেলপমেন্ট অথরিটির তরফ থেকে সাংসদ তহবিল থেকে দেওয়া প্রায় ৭০ লক্ষ টাকা আটকে রাখা হয়েছে। যে টাকা সাধারণ মানুষের সেবার জন্য ব্যয় করা উচিত, সেটা রাজনৈতিক স্বার্থে আটকে রাখার কারণ কী? একদিকে সরকার বলে নাকি টাকা নেই। তাহলে এই বরাদ্দগুলো কার নির্দেশে আটকে রাখা হচ্ছে? নাকি টাকাটা আটকে রেখে সুদটা খাচ্ছে রাজ্য সরকার।”
দিলীপ ঘোষের এই দাবি ঘিরে রাজনৈতিক মহলে চলছে জোর আলোচনা। শাসক-বিরোধী তরজাও শুরু হয়ে গিয়েছে। যদিও দিলীপ ঘোষের অভিযোগ কার্যত অস্বীকার করেছেন এমকেডিএ’র চেয়ারম্যান দীনেন রায়। তাঁর দাবি, মাত্র কয়েকদিন আগেই মেদিনীপুর-খড়গপুর উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান হয়েছেন তিনি। তাই তাঁর পক্ষে এখনই কিছু বলা সম্ভব নয়। তবে সমস্ত নথিপত্র তৈরি করতে বলেছেন বলেই জানান দীনেনবাবু। পুরভোটের আগে শাসক দলের চাপ বাড়াতেই কি দিলীপ ঘোষ এই বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন, রাজনৈতিক মহলে উঠছে প্রশ্ন।

টাচ করুন, দেখুন আপনার প্রিয় অভিনেত্রীদের অসংখ্য ফটো