ধ্বংসের পথে আরও একধাপ, আশঙ্কায় বিশ্ববাসী

একটু একটু করে ধ্বংসের পথে এগিয়ে চলেছে পৃথিবী। NASA-র তরফ থেকে পাঠানো ছবি তারই ইঙ্গিত দিচ্ছে যেন। NASA যে ছবি পাঠিয়েছে তাতে দেখা গিয়েছে, মাত্র ৯ দিনে আন্টার্কটিকার প্রায় ২০% বরফ গলে গিয়েছে।

বেশ কিছুদিন ধরে পরিবেশবিদরা বিশ্ব উষ্ণায়ন বা গ্লোবাল ওয়ার্মিং-এর কুপ্রভাবের কথা বলে আসছেন। আর এবার  NASA-র তরফ থেকে পাঠানো ছবিতে দেখা গিয়েছে, দ্বীপপুঞ্জের যে জায়গাগুলি বরফের কারণে কোনও সময়েই দেখা যায় না, তা ৯ দিনের তাপপ্রবাহের কারণে উন্মুক্ত হয়ে গিয়েছে। গরমের প্রভাবও পড়েছে যথেষ্ট।

আরও পড়ুন: তুরস্কে ভূমিকম্প, মৃত ৯ আহত শতাধিক

নাসার আর্থ অবজারভেটরি জানিয়েছে, মাত্র এক সপ্তাহের কিছু বেশি সময়ের মধ্যেই ইগল আইল্যান্ডের চূড়ার চার ইঞ্চি বরফের আস্তরণ গলে যায়। ম্যাসাচুসেটসের নিকোলস কলেজের জিওলজিস্ট মৌরী পেলটো অবজারভেটরিকে জানিয়েছেন, ‘আন্টার্কটিকায় এত তাড়াতাড়ি গলে যাওয়া পুকুর কখনও এর আগে দেখিনি। এভাবে বরফ গলে যাওয়ার দৃশ্য আলাস্কা ও গ্রিনল্যান্ডে দেখা গেলেও তা কখনও হয়নি আন্টার্কটিকায়।’ বরফ গলে বেরিয়ে এসেছে টলটলে জলের আস্তরণ। চলতি মাসের শুরুর দিকে রেকর্ড উষ্ণতম দিনের সাক্ষী হয় আন্টার্কটিকা। তাপমাত্রা পৌঁছে যায় ৬৪.৯ ডিগ্রি ফারেনহাইটে। ওই দিন একই তাপমাত্রা ছিল লস এঞ্জেলেসেও।

একটি সংবাদ মধ্যমের খবর অনুযায়ী পরিবেশ বিজ্ঞানী জেভিয়ার ফেটউইসের মতে, এই গ্রীষ্মে সমুদ্রের জলস্তর বৃদ্ধিতে সবচেয়ে বেশি অবদান রেখেছে এই তাপপ্রবাহ। দীর্ঘ সময় ধরে গরমের কারণেই এই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। বিশ্বের শীতলতম স্থানে কখনও এমন ঘটনা ঘটতে দেখা যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *