টিকা বন্টনে বৈষম্য: মমতার অভিযোগেও শিলমোহর কেন্দ্রের

সোমনাথ আদক: একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে থেকেই কেন্দ্রের টিকা বন্টনে বৈষম্যকে কেন্দ্র করে স্বরব হয়েছিল রাজ্য তৃণমূল কংগ্রেস৷  তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছিল, করোনার বিরুদ্ধে দেশব্যাপী টিকা বন্টনের ক্ষেত্রে বৈষম্য মূলম আচরণ করছে, কেন্দ্রের মোদি সরকার। বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিকে বেশি করে টিকা দিচ্ছে নরেন্দ্র মোদির সরকার। কিন্তু এই রাজ্যকে প্রয়োজন মতো টিকা পাঠাচ্ছে না কেন্দ্র। এই নিয়ে সংসদের বাদল আধিবেশনেও বিরোধীরা একজোট হয়ে হট্টগোল করে। ওয়ালে নেমে প্রতিবাদ জানায়। তার জেরে দফায় দফায় মুলতুবি হয়ে যায় অধিবেশন। এ নিয়ে সংসদে একটি লিখিত প্রশ্ন রেখেছিলেন তৃণমূল সাংসদ মালা রায়। যার জবাবে সব রাজ্যকে দেওয়া ভ্যাকসিনের পরিমাণের একটি খতিয়ান তুলে ধরেছে স্বাস্থ্যমন্ত্রক। এবার কেন্দ্রের সেই খতিয়ান সামনে আসতেই ফের বেকায়দায় পড়েছে  কেন্দ্রীয় সিরকার।

একাধিক বিজেপি শাসিত রাজ্যের তুলনায় কম ভ্যাকসিন পেয়েছে বাংলা। কার্যত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিযোগে শিলমোহর দিল কেন্দ্র। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক এদিন স্বীকার করে নিয়েছে আয়তন ও জনঘনত্বের বিচারে বাংলার থেকে অনেক পিছিয়ে থাকা বিজেপি শাসিত রাজ্যকেও বাংলার থেকে বেশি ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বহুদিন ধরেই অভিযোগ করে আসছেন, বাংলায় সঠিকভাবে ভ্যাকসিন সরবরাহ করছে না কেন্দ্র। প্রয়োজনের তুলনায় এরাজ্যকে টিকার জোগান থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। সত্যিই কি বাংলাকে প্রয়োজন অনুযায়ী টিকার জোগান দেওয়া হচ্ছে না? এনিয়ে সংসদে একটি লিখিত প্রশ্ন রেখেছিলেন তৃণমূল সাংসদ মালা রায়। যার জবাবে সব রাজ্যকে দেওয়া ভ্যাকসিনের পরিমাণের একটি খতিয়ান তুলে ধরেছে স্বাস্থ্যমন্ত্রক। তাতেই দেখা যাচ্ছে বাংলার তুললায় ছোট ছোট বিজেপি শাসিত রাজ্যও বেশি বেশি ভ্যাকসিন পেয়েছে।

পরিসংখ্যান বলছে, কেন্দ্রের তরফে এখনও পর্যন্ত রাজ্যকে ২ কোটি ২৮ লক্ষ ৫৮ হাজার ৭৬০ ডোজ টিকা পাঠানো হয়েছে। তার মধ্যে ১ কোটি ৯৭ লক্ষ কোভিশিল্ড টিকা ও ৩১ লক্ষের মতো কোভ্যাকসিন টিকা। অথচ, বিজেপি শাসিত গুজরাট বাংলার থেকে আয়তনে অনেক ছোট হওয়া সত্ত্বেও টিকা পেয়েছে ২ কোটি ৫৯ লক্ষ। আরেক বিজেপি শাসিত রাজ্য কর্ণাটকও বাংলার থেকে আয়তনে অনেক ছোট হওয়া সত্ত্বেও ভ্যাকসিন পেয়েছে বাংলার থেকে বেশি। সেরাজ্যকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে ২ কোটি ৩৯ লক্ষ। বাংলার থেকে অনেক ছোট আকারের মধ্যপ্রদেশ প্রায় বাংলার সমপরিমাণ ভ্যাকসিন পেয়েছে। এই পরিসংখ্যান তুলে ধরেই তৃণমূল দাবি করছে, কেন্দ্র টিকার ক্ষেত্রেও অবিজেপি রাজ্যগুলিকে বঞ্চিত করছে। ‘ওঁরা মানুষের জীবন নিয়ে খেলছে।’ অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূল বিধায়ক তাপস রায়। যদিও, বিজেপির দাবি, কেন্দ্র সুস্পষ্ট নীতি মেনেই ভ্যাকসিন বিতরণ করছে। এরাজ্যে যেহেতু টিকাকরণের হার খারাপ, তাই কম টিকা দেওয়া হয়েছে।