সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ্যে টাকা চাইছেন বিধায়ক! পুরোটাই ফাঁদ

সি. ভাস্কর (শিলিগুড়ি): সত্যিই, প্রতারকের কাছে নাইবা গুণী নাইবা কানন! এবার প্রতারকের খপ্পরে শিলিগুড়ির বিধায়ক ডঃ শংকর ঘোষ। তাঁর নামে ভুয়ো প্রোফাইল খুলে পরিচিতদের কাছ থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় টাকা চাওয়ার অভিযোগ। বিষয়টি নজরে আসতেই ভিডিও বার্তা দিলেন বিজেপি বিধায়ক। তাঁর অভিযোগ, তাকে ও দলকে বদনাম করতেই এসব করা হচ্ছে। এদিকে এ ঘটনা চাউর হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে শিলিগুড়ির রাজনৈতিক মহলে।

শিলিগুড়ি বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি বিধায়ক ডঃ শংকর ঘোষ। দলীয় নানান কাজে বর্তমানে তিনি কলকাতায়। এদিকে তাঁরই অদৃষ্টে তাঁর নামে ভুয়ো অ্যাকাউন্ট খুলে পরিচিতদের থেকে টাকা চাওয়ার অভিযোগ। বিধায়কের অভিযোগ, তাঁর ছবি ব্যবহার করে সোশ্যাল মিডিয়ায় (ফেসবুকে) একটি ভুয়ো প্রোফাইল তৈরি করা হয়েছে। তারপর সেই প্রোফাইল ব্যবহার করে, ম্যাসেঞ্জার অ্যাপের মাধ্যমে পরিচিতদের কাছে টাকা চেয়ে মেসেজ করা হয়। কখন সেই অর্থমূল্য ১০, ০০০টাকা, কখনও বা তা ২০, ০০০ টাকা। এমনকি বহু পরিচিত মানুষ নাকি সেই মেসেজ পেয়ে শংকরবাবুকে সরাসরি ফোনও করে বসেন বলেও দাবি বিধায়কের।

এরপরই বিষয়টি সামনে আসে। সঙ্গে সঙ্গেই নিজের ফেসবুক পেজ থেকে সবাইকে সতর্ক করে ভিডিও বার্তা দেন বিধায়ক। পাশাপাশি, শিলিগুড়ির পুলিশ কমিশনারকেও ফোনে বিষয়টি জানান তিনি। শংকর ঘোষ বলেন, ‘আমার ফেসবুক প্রোফাইল দীর্ঘদিনের। আগে কখনও এমন ঘটনা ঘটেনি। আমাকে এবং আমার দলকে বদনাম করতেই এটা করা হতে পারে।’

কখনও ভুয়ো বিচারক বা কখনও চিকিৎসক আবার সম্প্রতি পুলিশের উচ্চপদস্থ আধিকারিক; প্রতারণার নানা কৌশল যেন আবিষ্কার করে প্রতারকরা। আর সেই ফাঁদে পা দিয়ে সর্বশান্ত হয় শিক্ষক থেকে শুরু করে আইনজীবী। এবার সেই চক্রের শিকার হয়ে অস্বস্তি বেড়েছে শিলিগুড়ির বিধায়ক শংকর ঘোষের। যদিও দমতে নারাজ শংকরবাবুর কথায়, ‘এসব করে শংকরকে কী আর রোখা যায়?’