স্কুল কর্তৃপক্ষের অভিনব প্রয়াস, পাড়ায় পাড়ায় ক্লাস নেবেন শিক্ষকেরা

সার্থক কুমার দে, পশ্চিম বর্ধমান :

ফের লকডাউন এর কারণে বন্ধ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান । স্কুলছুট রুখতে তাই অভিনব উদ্যোগ নিল প্রতাপপুরের কালিকাপুর স্কুল কর্তৃপক্ষ । স্কুল না খোলা পর্যন্ত পাড়ায় পাড়ায় গিয়ে পড়ুয়াদের পড়াবেন শিক্ষকেরা ।

করোনা সংক্রমনের কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলি । পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় কিছুদিন আগে শুরু হয়েছিল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে পঠন পাঠান । কিন্তু সম্প্রতি করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তেই সরকারি নির্দেশিকায় তা পুনরায় বন্ধ হয়ে যায় । কবে খুলবে স্কুলের গেট  তার নেই কোন নিশ্চয়তা । ফলে ফের পড়ুয়াদের ভবিষ্যৎ নিয়ে তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা । দীর্ঘদিন এভাবে চলতে থাকলে বাড়তে পারে স্কুল ছুটের সংখ্যা । বিষয়টি নিয়ে চিন্তিত শিক্ষক মহল । তাই লকডাউনেও পড়ুয়াদের পড়াশোনার চর্চা অব্যাহত রাখতে অভিনব উদ্যোগ নিল লাউদোহা ব্লকের প্রতাপপুর পঞ্চায়েতের কালিকাপুর তপবন স্কুল কর্তৃপক্ষ । ঠিক হয়েছে যতদিন না পুনরায় স্কুল খুলছে ততদিন পাড়ায় পাড়ায় গিয়ে পড়ুয়াদের পড়াবেন স্কুলের শিক্ষকেরা । স্কুল পরিচালন সমিতির সভাপতি সঞ্জয় মুখোপাধ্যায় জানান লকডাউন এর কারণে দীর্ঘদিন স্কুল বন্ধ ছিল । সম্প্রতি স্কুল খোলার পর কিছুদিন পঠন-পাঠন চালু থাকলেও ফের তা বন্ধ হয়ে যায় সরকারি নির্দেশে । এর ফলে পড়াশুনার প্রতি আগ্রহ কমছে পড়ুয়াদের । স্কুলের পক্ষ থেকে অনলাইন ক্লাসের ব্যবস্থা করা হলো ও বিভিন্ন অজুহাতে তাতে অনুপস্থিত থাকছে অনেক পড়ুয়া । সঞ্জয় বাবু জানান সম্প্রতি স্কুলে মিটিং করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যতদিন না স্কুল খুলছে ততদিন স্কুলের শিক্ষকেরা পাড়ায় পাড়ায় গিয়ে ক্লাস নেবেন পড়ুয়াদের । প্রতিটি পাড়ায় ক্লাস করানোর জন্য উপস্থিত থাকবেন দুজন করে শিক্ষক । স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মলয় কুমার মেটে জানান স্কুলে ১৫ থেকে ১৫ বছর বয়সের পড়ুয়াদের টিকাকরণ চলছে । টিকাকরণ সম্পূর্ণ হয়ে গেলেই পাড়ায় পাড়ায় শুরু করা হবে ক্লাস । মলয় বাবু বলেন বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যে বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে পড়ুয়া ও অভিভাবকদের সাথে এই বিষয়ে কথা বলেছেন শিক্ষকেরা । পড়ুয়া ও অভিভাবক সকলেই পাড়ায় পাড়ায় ক্লাস নেওয়ার বিষয়টি নিয়ে উৎসাহী বলে জানান মলয় বাবু ।


টাচ করুন, দেখুন আপনার প্রিয় অভিনেত্রীদের অসংখ্য ফটো